মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:১৩ অপরাহ্ন

আপডেট
*** সিসি ক্যামেরা সিস্টেম নিতে যোগাযোগ করুন - 01312-556698  ***              সিসি ক্যামেরা সিস্টেম নিতে যোগাযোগ করুন - 01312-556698 ***                     *** সিসি ক্যামেরা সিস্টেম নিতে যোগাযোগ করুন - 01312-556698  ***              সিসি ক্যামেরা সিস্টেম নিতে যোগাযোগ করুন - 01312-556698 ***

পঞ্চগড়ে স্কুল ছাত্রীকে নগ্নকরে ধর্ষণের চেষ্টা, ভিডিও ধারণ দুই আসামী গ্রেপ্তার

পঞ্চগড়ে স্কুল ছাত্রীকে নগ্নকরে ধর্ষণের চেষ্টা, ভিডিও ধারণ দুই আসামী গ্রেপ্তার

পঞ্চগড় প্রতিনিধি:

পঞ্চগড়ে সদ্য এসএসসি পাস এক স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা করে তা মোবাইলে ভিডিও ধারণ করার অভিযোগে থানায় পর্ণোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইন ও নারী শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেছে। এরই মধ্যে মামলার দুই আসামীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তার কৃতরা হলেন জেলা শহরের মিঠাপুকুর এলাকার আকবর আলীর ছেলে ফজলুল হক সাগর (৩০) এবং পঞ্চগড় শহরের ডোকরোপাড়া এলাকার আমিনার রহমানের ছেলে জাফরুল ইসলাম অন্তর (১৬)। ফজলুল হক সাগর পঞ্চগড় গণপূর্ত বিভাগের একজন কর্মচারী ও জেলা শিল্পকলাএকাডেমির কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য। মামলা সূত্রে জানা যায়, পঞ্চগড় গণপূর্ত বিভাগের প্রহরী এবং জেলা শিল্পকলা একাডেমির নির্বাহী কমিটির সদস্য রাহাত সাউন্ডসিস্টেম প্রতিষ্ঠানের কর্ণধার মামলার প্রধান আসামী ফজলুল হক সাগরের নির্দেশে ছয় মাস আগে মামলার অপর আসামী জাফরুল ইসলাম অন্তর তার বান্ধবী পঞ্চগড় সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সে সময়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী ওই ছাত্রীকে কোচিং থেকে ফুসলিয়ে পঞ্চগড় ডিসি পার্ক এলাকায় ঘুরতে নিয়ে যায়। ডিসি পার্কের কাছেই মিঠাপুকুর শাহী মসজিদের পাশে কবর স্থানের রাস্তা ধওে হাঁটার সময় সাগর ওই শিক্ষার্থীকে টেনে হিচওে কাছের একটি পরিত্যক্ত ঘওে নিয়ে যায়। এ সময় ওই শিক্ষার্থীকে নগ্ন করে ধর্ষণের চেষ্টা কওে সাগর। এক পর্যায়ে এক হাতে মোবাইল দিয়ে ভিডিও ধারণ করে। এরপর মেয়েটিকে ছেড়ে দিলেও সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ধারণ করা ভিডিও ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দিয়ে বিভিন্ন অশালীন আচরণ করতে থাকে সাগর। ভয়ে ওই শিক্ষার্থী পরিবারের কাউকে বিষয়টি জানায়নি।এর মধ্যে সাগর ভিডিওটি ছড়িয়ে দিলে গত ১৫ মে ওই শিক্ষার্থীর ভাই তার বন্ধুর মোবাইল ফোনে তার বোনের ধারণ করা নগ œবিষয়টি দেখতে পেয়ে পরিবারের সবাইকে বিষয়টি জানায়। পরে ওই শিক্ষার্থীর মা বাদি হয়ে গত ১৭ মে পঞ্চগড় সদর থানায় ফজলুল হক সাগর ও জাফরুল ইসলাম অন্তরকে আসামী কওে পর্ণোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইন ও নারী শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করেন। মামলার পরপরই ওই দুই আসামীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। আদালতের মাধ্যমে সাগরকে জেল হাজতে ও অন্তরকে কিশোর শোধনাগারে প্রেরণ করা হয়। মামলার পর থেকেই আসামীপক্ষ থেকে ওই স্কুল ছাত্রীর পরিবারকে মিমাংসা করতে বিভিন্ন ভাবে চাপ দেয়া হচ্ছে বলে জানান পরিবারের লোকজন। এদিকে ফজলুল হক সাগরের নামে পর্ণোগ্রাফির মামলা হওয়ায় জেলা শিল্পকলাএকাডেমির কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য পদ থেকে তাকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। এছাড়াতার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পঞ্চগড় গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী রাজিবুল ইসলাম তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী বরাবওে সুপারিশ করেছেন। মামলার বাদী ওই শিক্ষার্থীও মা জানান, মামলা দায়েরের পর থেকে ভয়ে ও লোকলজ্জায় বর্তমানে বাড়িতে থাকতে পারছিনা। আসামীরা বিভিন্ন লোক জনের মাধ্যমে মীমাংসা করতে চাপ দিচ্ছে। আমরা এ ঘটনার দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি চাই। আর কেও যেন কারো সাথে এমন অপরাধ করার সাহস না পায়। পঞ্চগড় জেলা পরিষদের সদস্য আকতারুন নাহার সাকী বলেন, ন্যায় বিচার নিশ্চিত করতে হবে। এমন অশোভন ও অশালীন ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কেউ দিতে না পারে এ জন্য দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে। আর সেই সাথে ওই ভিডিওযার কাছে পাওয়াযাবে তাকেও এই মামলার আসামী করা যাবে। তাই তিনি এই ভিডিওটি যার যার কাছে আছে তা মুছে ফেলার অনুরোধ জানান। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পঞ্চগড় সদর থানার উপ-পরিদর্শক জাহেদুল ইসলাম জানান, আসামীদের গ্রেপ্তার করে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। তদন্তের জন্য আদালতে আমরা আসামীদের ৭ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেছি। রিমান্ড আবেদনের শুনানির দিন এখনো ধার্য হয়নি। গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী রাজিবুল ইসলাম জানান, সাগর আমাদের অফিসে প্রহরীর চাকুরি করতো। তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী বরাবরে সুপারিশ করা হয়েছে। পঞ্চগড়ের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নাঈমুল হাছান বলেন, ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা মায়ের করা মামলাটি গুরুত্বের সাথে দেখা হচ্ছে। এরই মধ্যে আমাসীদের গ্রেপ্তার করে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। পুলিশের পক্ষ থেকে আদালতে আসামীদের রিমান্ড চাওয়া হয়েছে।


Search News




©2020 Daily matrichaya. All rights reserved.
Design BY PopularHostBD