বুধবার, ১৯ Jun ২০২৪, ১২:০২ পূর্বাহ্ন

আপডেট
*** সিসি ক্যামেরা সিস্টেম নিতে যোগাযোগ করুন - 01312-556698  ***              সিসি ক্যামেরা সিস্টেম নিতে যোগাযোগ করুন - 01312-556698 ***                     *** সিসি ক্যামেরা সিস্টেম নিতে যোগাযোগ করুন - 01312-556698  ***              সিসি ক্যামেরা সিস্টেম নিতে যোগাযোগ করুন - 01312-556698 ***
সংবাদ শিরোনাম :
শার্শার সাতমাইল পশু হাটে ব্যাপক অনিয়ম নিরব উপজেলা প্রশাসন! বেনাপোলে অনলাইন প্রতারক চক্রের দুই সদস্য আটক বেনাপোলে রাজস্ব কর্মকর্তার উপর হামলাকারীদের আটকের দাবিতে মানববন্ধন চন্দ্রগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশের তৎপরতায় মাদক সহ চালক গ্রেপ্তার চাকরি হারালেন ঘুষের টাকা সহ আটক কাস্টম কর্মকর্তা মুকুল বেনাপোলে প্রশাসনকে বোকা বানাতে স্বর্ণ চোরাকারবারিদের লোক দেখানো ব্যবসা বেনাপোলে কৃত্রিম যানজটের শিকার ৪ গ্রামবাসি সহ ভারতগামী পাসপোর্ট যাত্রীরা বাসার দরজার তালা ভেঙ্গে কয়েক লক্ষ টাকার স্বর্ণালঙ্কার লুট, থানায় অভিযোগ দায়ের ঝুঁকিপূর্ণ ভাবে গ্যাস সিলিন্ডার রিফিল করা হচ্ছে সোনাইমুড়ীতে যৌতুকের মামলায় স্বামী শ্রীঘরে

গাইবান্ধায় ঢাকা নিয়ে যাওয়ার প্রলোভনে কিশোরী ধর্ষণ

গাইবান্ধায় ঢাকা নিয়ে যাওয়ার প্রলোভনে কিশোরী ধর্ষণ

ফয়সাল রহমান জনি  গাইবান্ধা জেলা  প্রতিনিধিঃ

গাইবান্ধায় ঢাকা নিয়ে যাওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে এক কিশোরীকে (১৬) ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে মাংস বিক্রেতা লালমিয়া ও বাসের কাউন্টার মাস্টার বকুল মিয়ার বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় মঙ্গলবার (১৩ জুলাই) সন্ধ্যায় দুই ব্যক্তির বিরুদ্ধে সদর থানায় মামলা করেছেন ওই কিশোরীর মা। আজকের পত্রিকাকে এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন সদর থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ ওসি মাহফুজার রহমান।

অভিযুক্তরা হলেন- সদর উপজেলার রামচন্দ্রপুর ইউনিয়নের পারবর্তীপুর গ্রামের কসাই লাল মিয়া ও একই ইউনিয়নের ভগবানপুর গ্রামের বকুল মিয়া। এদের মধ্যে লাল মিয়া পেশায় মাংস বিক্রেতা (কসাই) আর বকুল বাসের কাউন্টার মাস্টার।

মামলা সূত্রে জানা যায়, সোমবার (১২ জুলাই) সন্ধ্যা ৭টার দিকে ভুক্তভোগী ওই কিশোরী মায়ের সঙ্গে অভিমান করে ঢাকায় যাওয়ার উদ্দেশ্যে  বাড়ি থেকে বেরিয়ে সদর উপজেলার বালুয়া বাজারে যায়। সেখানে ঢাকা যাওয়ার জন্য মেয়েটি শাওন এন্টারপ্রাইজ নামে একটি বাস কাউন্টারের সামনে গিয়ে এদিক সেদিক টিকিটের খোঁজ করছিলো।

এ সময় বাসটির কাউন্টার মাস্টার বকুল প্রধান ও কসাই লাল মিয়া মেয়েটির কাছে কোথায় যাবেন জানতে চাইলে সে ঢাকা যাওয়ার কথা বলে। তখন তারা বলেন, লকডাউনে বাস বন্ধ; তবে মাইক্রোবাসে ঢাকা যাওয়া যাবে। এতে মেয়েটি সরল বিশ্বাসে রাজি হয়ে যায়। রাত ৮টার দিকে তারা মেয়েটিকে বাথরুম সেরে নেওয়ার কথা বলে একটি পরিত্যাক্ত বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে মেয়েটিকে একাধিকবার ধর্ষণ করে পালিয়ে যান তারা। পরে এলাকাবাসী মেয়েটিকে উদ্ধার করে তার বাড়িতে পৌঁছে দেয়।

গাইবান্ধা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহফুজুর রহমান মুঠোফোনে বলেন, এ ঘটনায় মেয়েটির মা বাদী হয়ে লাল মিয়াকে প্রধান আসামি এবং বকুল মিয়াকে সহযোগী আসামি করে ধর্ষণ মামলা করেছেন।  আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে তিনি জানান।


Search News




©2020 Daily matrichaya. All rights reserved.
Design BY PopularHostBD