বুধবার, ১৯ Jun ২০২৪, ১২:০৫ পূর্বাহ্ন

আপডেট
*** সিসি ক্যামেরা সিস্টেম নিতে যোগাযোগ করুন - 01312-556698  ***              সিসি ক্যামেরা সিস্টেম নিতে যোগাযোগ করুন - 01312-556698 ***                     *** সিসি ক্যামেরা সিস্টেম নিতে যোগাযোগ করুন - 01312-556698  ***              সিসি ক্যামেরা সিস্টেম নিতে যোগাযোগ করুন - 01312-556698 ***
সংবাদ শিরোনাম :
শার্শার সাতমাইল পশু হাটে ব্যাপক অনিয়ম নিরব উপজেলা প্রশাসন! বেনাপোলে অনলাইন প্রতারক চক্রের দুই সদস্য আটক বেনাপোলে রাজস্ব কর্মকর্তার উপর হামলাকারীদের আটকের দাবিতে মানববন্ধন চন্দ্রগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশের তৎপরতায় মাদক সহ চালক গ্রেপ্তার চাকরি হারালেন ঘুষের টাকা সহ আটক কাস্টম কর্মকর্তা মুকুল বেনাপোলে প্রশাসনকে বোকা বানাতে স্বর্ণ চোরাকারবারিদের লোক দেখানো ব্যবসা বেনাপোলে কৃত্রিম যানজটের শিকার ৪ গ্রামবাসি সহ ভারতগামী পাসপোর্ট যাত্রীরা বাসার দরজার তালা ভেঙ্গে কয়েক লক্ষ টাকার স্বর্ণালঙ্কার লুট, থানায় অভিযোগ দায়ের ঝুঁকিপূর্ণ ভাবে গ্যাস সিলিন্ডার রিফিল করা হচ্ছে সোনাইমুড়ীতে যৌতুকের মামলায় স্বামী শ্রীঘরে

চাল কম দেয়ার প্রতিবাদ করায় মারলেন জামালপুরের কেন্দুয়ার চেয়ারম্যান

চাল কম দেয়ার প্রতিবাদ করায় মারলেন জামালপুরের কেন্দুয়ার চেয়ারম্যান

আবু সায়েম মোহাম্মদ সা’-আদাত উল করীম:
জামালপুর জেলা সদর উপজেলার ১নং কেন্দুয়া ইউনিয়নে  হত দরিদ্রদের জন্য বরাদ্দকৃত প্রধানমন্ত্রীর ভিজিএফের ১০ কেজি চালের প্রণোদনায় প্রত্যেককে  বিতরণের সময়  ৩ থেকে ৪কেজি পরিমাণ কম দেওয়া হচ্ছে এমন অভিযোগ পাওয়া গেছে। এছাড়া বরাদ্দকৃত ১০ কেজি চালের মধ্যে জন প্রতি ৬-৭ কেজি করে দিলে উপকারভোগীরা প্রতিবাদ করলে প্রতিবাদকারীদের জনসম্মুখে মারধর করেছেন ইউপি চেয়ারম্যান শেখ মাহবুবুর রহমান মঞ্জু।
চেয়ারম্যান এর বিরুদ্ধে এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে
সোমবার ১৯ জুলাই ২০২১  দুপুরে জামালপুর সদর উপজেলার গোপালপুর ঘুন্টি এলাকার মারধরের শিকার অটোরিকশা চালক মো. জাহাঙ্গীর আলম এক সংবাদ সম্মেলন করে তিনি এসব ঘটনা জানান। এ সময় তিনি আরও বলেন গতকাল ১৮ জুলাই রবিবার বিকাল ৩টায় আমি বাংলাদেশ উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রণোদনার চাল নিতে যাই। সেখানে জনপ্রতি ১০ কেজি করে চাল দেয়ার কথা থাকলেও প্রত্যেককে ৬ থেকে ৭ কেজি করে চাল বিতরণ করা হচ্ছিল। আমি এর প্রতিবাদ করলে চেয়ারম্যান সবার সামনে আমার মুখে কানে চড়-থাপ্পর দেন। এতে আমার কান দিয়ে রক্ত বের হয়। এখন কানে কম শুনছি। আমি ছাড়াও আরও দুই-তিনজনকে মারধর করেছেন ওই চেয়ারম্যান। এ ঘটনা আমি এলাকার মাতব্বরগণকে জানিয়েছি। তাদের পরামর্শে আজ সংবাদ সম্মেলনে আমি এই ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চাই।সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত অনেকের মধ্যে মৃত রহমত আলী শেখের ছেলে মো. মোশাররফ আলী মুছা বলেন, ঘটনাস্থলে আমিও ছিলাম। চাল কম দেয়ার ঘটনা চেয়ারম্যানকে জানালে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে নিজহাতে জাহাঙ্গীর, জহুসহ কয়েকজনকে মারধর করেন।
এ বিষয়ে অভিযুক্ত ওই চেয়ারম্যান গণমাধ্যমকে বলেন, মারধরের কোনো ঘটনা ঘটেনি। যে আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছে সে লাইনে বিশৃঙ্খলা করছিল। আমি তাকে লাইন ঠিক করার জন্য ধাক্কা দিয়ে সরিয়ে দিয়েছি। তিনি আরও বলেন আমার বিরুদ্ধে রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় অনেকেই ষড়যন্ত্র করছে।


Search News




©2020 Daily matrichaya. All rights reserved.
Design BY PopularHostBD