মঙ্গলবার, ১৮ Jun ২০২৪, ১১:৩১ পূর্বাহ্ন

আপডেট
*** সিসি ক্যামেরা সিস্টেম নিতে যোগাযোগ করুন - 01312-556698  ***              সিসি ক্যামেরা সিস্টেম নিতে যোগাযোগ করুন - 01312-556698 ***                     *** সিসি ক্যামেরা সিস্টেম নিতে যোগাযোগ করুন - 01312-556698  ***              সিসি ক্যামেরা সিস্টেম নিতে যোগাযোগ করুন - 01312-556698 ***
সংবাদ শিরোনাম :
শার্শার সাতমাইল পশু হাটে ব্যাপক অনিয়ম নিরব উপজেলা প্রশাসন! বেনাপোলে অনলাইন প্রতারক চক্রের দুই সদস্য আটক বেনাপোলে রাজস্ব কর্মকর্তার উপর হামলাকারীদের আটকের দাবিতে মানববন্ধন চন্দ্রগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশের তৎপরতায় মাদক সহ চালক গ্রেপ্তার চাকরি হারালেন ঘুষের টাকা সহ আটক কাস্টম কর্মকর্তা মুকুল বেনাপোলে প্রশাসনকে বোকা বানাতে স্বর্ণ চোরাকারবারিদের লোক দেখানো ব্যবসা বেনাপোলে কৃত্রিম যানজটের শিকার ৪ গ্রামবাসি সহ ভারতগামী পাসপোর্ট যাত্রীরা বাসার দরজার তালা ভেঙ্গে কয়েক লক্ষ টাকার স্বর্ণালঙ্কার লুট, থানায় অভিযোগ দায়ের ঝুঁকিপূর্ণ ভাবে গ্যাস সিলিন্ডার রিফিল করা হচ্ছে সোনাইমুড়ীতে যৌতুকের মামলায় স্বামী শ্রীঘরে

ঠাকুরগাঁওয়ে লাঞ্চনার অভিযোগে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের

ঠাকুরগাঁওয়ে লাঞ্চনার অভিযোগে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি: জেলার হরিপুর উপজেলায় উপ-সহকারি সেটেলমেন্ট অফিসারকে লাঞ্চনার অভিযোগে ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেছেন সেটেলমেন্ট কর্তৃপক্ষ। অপরদিকে একটি চক্র বিষয়টিকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার জন্য সাজানো অভিযোগ দায়ের করছেন বলে জানায় ওই ভূক্তভোগী।
রবিবার (১০ এপ্রিল) মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন হরিপুর থানার ওসি তাজুল ইসলাম। এ ঘটনায় গত (৯ এপ্রিল) ৪ জনের নাম উল্লেখসহ ৭-৮ জনকে অজ্ঞাত করে হরিপুর থানায় মামলা দায়ের করেছেন সেটেলমেন্ট কর্তৃপক্ষ, যার মামলা নং-৯।


মামলায় এজাহার ভূক্ত আসামীরা হলেন ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম (৪৫), জয়নুল ইসলাম (৪০), মো. ফজলু (৪০), আবু তাহের (৩৫)সহ অজ্ঞাত আরও ৭-৮ জন।
মামলার এজাহারে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার (৭ এপ্রিল) দুপুর আড়াইটার দিকে সহকারী সেটেলমেন্ট অফিসার মো. ফেরদৌস খাঁন তার কার্যালয়ে উপজেলার ভবানন্দপুর মৌজায় ৩০ ধারায় দায়ের করা আপত্তি শুনানীর কাজে কর্মরত ছিলেন। এমন সময় হরিপুর ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম তার দলবল নিয়ে ওই কর্মকর্তার কার্যালয়ে বে-আইনি ভাবে প্রবেশ করে দরজা বন্ধ করে দেয় এবং ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবী করে। সেই সাথে দায়ের করা আপত্তির শুনানি, তাদের পক্ষে রায় দেওয়ার জন্য চাপ দিতে থাকে। তাদের কথায় কর্ণপাত না করায় ওই কর্মকর্তাকে হত্যা করে লাশ গ্রামে পাঠিয়ে দেওয়ার হুমকি দিতে থাকে।
এক পর্যায় এজাহার ভূক্ত আসামীরা এজলাস ভেঙ্গে জরিপ সংক্রান্ত কেসের নথিপত্র ছিড়িয়া নষ্ট করিয়া ফেলে। হত্যার উদ্দেশ্যে ওই কর্মকর্তার শার্টের কলার ধরে এজলাস থেকে নামিয়ে মারধর করতে থাকে। সাথে স্যামস্যাং মোবাইল ফোন আছড়াইয়া ভাঙ্গিয়া ফেলে। এতে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে উদ্ধার করে হরিপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করানো হয়।
হরিপুর উপজেলার নাম প্রকাশে একাধিক ব্যক্তি বলেন এই ঘটনার জন্য উপজেলা আ’লীগের কিছু হাইব্রীড নেতারা দায়ি। তারা আরও বলেন রফিকুল চেয়ারম্যান ইতিপূর্বে এধরনের আরও ঘটনা ঘটিয়েছিল।
ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম বলেন, উনিও উত্তেজিত হয়ে কথা বলেছেন, আমিও উত্তেজিত হয়ে কথা বলেছি। তবে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। ইউপি নির্বাচনে আমার বিরোধী পক্ষ আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য অপ-প্রচার চালাচ্ছে।
সহকারি সেটেলমেন্ট অফিসার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) মোস্তাফিজার রহমান বলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে মিমাংসার কথা বলে আমাদের ডেকে উনার উপস্থিতে আবারও বিভিন্ন ভাবে হুমকি প্রদর্শণ করেন ওই ইউ পি চেয়ারম্যান। যা খুবই দুঃখ জনক বলে উল্লেখ করেন তিনি।
হরিপুর থানার ওসি তাজুল ইসলাম বলেন এব্যাপারে থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে আসামীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনিয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


Search News




©2020 Daily matrichaya. All rights reserved.
Design BY PopularHostBD