বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ১০:৫১ অপরাহ্ন

আপডেট
*** সিসি ক্যামেরা সিস্টেম নিতে যোগাযোগ করুন - 01312-556698  ***              সিসি ক্যামেরা সিস্টেম নিতে যোগাযোগ করুন - 01312-556698 ***                     *** সিসি ক্যামেরা সিস্টেম নিতে যোগাযোগ করুন - 01312-556698  ***              সিসি ক্যামেরা সিস্টেম নিতে যোগাযোগ করুন - 01312-556698 ***

অতীত থেকে কতটুকু শিক্ষা নিচ্ছি?

অতীত থেকে কতটুকু শিক্ষা নিচ্ছি?

ইতিহাসের সবচেয়ে বড় শিক্ষা এই যে, ইতিহাস থেকে কেউ শিক্ষা নেয় না। প্রখ্যাত ব্রিটিশ লেখক-নাট্যকার জর্জ বার্নার্ড শ তার নিজ দেশের ও সময়ের পরিপ্রেক্ষিতে এ কথা বললেও আমাদের দেশ ও সমাজ ব্যবস্থার বর্তমান প্রেক্ষাপটে কথাটির সত্যতা অনস্বীকার্য।

আমরা যেন ভয়ঙ্কর এক মৃত্যুফাঁদে পড়েছি। বাসাবাড়ি, বহুতল ভবন, সড়ক-মহাসড়ক, রাজপথ-নৌপথ-সেতু- সব যেন সাক্ষাৎ মৃত্যুফাঁদ। সড়কে বের হলে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী আবরারের মতো গাড়ির চাকায় পিষ্ট হয়ে প্রাণ হারাতে হবে আর অফিসে কিংবা বাসায় থাকলে মরতে হবে আগুনে পুড়ে। কখনও পুরান ঢাকার নিমতলীতে, আবার কখনও আশুলিয়ার তাজরীন ফ্যাশনে।

একবার সাভারের রানা প্লাজা, আরেকবার চকবাজার। আবার চকবাজারের শোক কাটতে না কাটতেই বনানীর অগ্নিকাণ্ডে ২৫ জনের অঙ্গার হওয়া লাশ। এভাবে একের পর এক অগ্নিকাণ্ড বা সড়ক দুর্ঘটনায় প্রতিদিন শবযাত্রায় যুক্ত হচ্ছে নতুন লাশ। বাতাসে লাশের গন্ধ আর স্বজনদের বুকফাটা আর্তনাদে চারদিক প্রতিনিয়ত ভারি হয়ে উঠছে। মৃত্যুর মিছিল শুধু দীর্ঘতরই হচ্ছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্যমতে, প্রতি বছর সড়ক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশে ২০ থেকে ২১ হাজার মানুষের প্রাণহানি ঘটে। বুয়েটের হিসাবে এ মৃত্যু সংখ্যা ১১ থেকে ১২ হাজারের মধ্যে। বাংলাদেশ যাত্রীকল্যাণ সমিতির হিসাবে প্রতি বছর সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারায় ৭ হাজার থেকে সাড়ে ৮ হাজার মানুষ। আর পুলিশের তথ্য বলছে, প্রতি বছর সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয় সাড়ে ৩ থেকে ৪ হাজার মানুষ।

অন্যদিকে, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের পরিসংখ্যানে দেখা যায়, শুধু ২০১৮ সালে সারা দেশে ছোট-বড় মিলে প্রায় সাড়ে ১৯ হাজার অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। ফায়ার সার্ভিসের তথ্য অনুসারে, সারা দেশে ২০১৮ সালে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে ১৯ হাজার ৬৪২টি। এসব অগ্নিকাণ্ডে মৃত্যু হয়েছে ১৩০ জনের। এক হিসাবে দেখা গেছে, গত ৫ বছরে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় আর্থিক ক্ষতি হয়েছে প্রায় ২৫ হাজার কোটি টাকার।

সব মৃত্যুই বেদনাদায়ক; কিন্তু এ ধরনের অপমৃত্যু মেনে নেয়া অত্যন্ত কঠিন। প্রতিটি হৃদয়বিদারক ও মর্মান্তিক ঘটনা সংঘটিত হওয়ার পর পুরো দেশ শোকে আচ্ছন্ন হয়। কিন্তু আমাদের দুর্ভাগ্য যে, এমন রোমহর্ষক ঘটনাগুলো আমাদের অনেকের কাছে নিতান্তই শোকের বিষয়, শিক্ষণীয় নয়।

আমার মনে হয়, একের পর এক যে মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটছে- সব একই সূত্রে গাঁথা। প্রতিটি দুর্ঘটনা যেমন পুঁজিপতিদের অতি মুনাফাখোরী মনোভাবের প্রতিফলন, তেমনি আমাদের অজ্ঞতা, অবহেলা, অব্যবস্থাপনার প্রকৃষ্ট উদাহরণ। অতীতের উদাহরণগুলো থেকে শিক্ষা নিয়ে আমরা একটু সচেতন হলেই অধিকাংশ দুর্ঘটনা এড়াতে সক্ষম হতাম। তাই অতীতের মর্মস্পর্শী ঘটনাগুলো থেকে শিক্ষা গ্রহণ করে যতক্ষণ আমরা কার্যকর ব্যবস্থা না নিতে পারব ততক্ষণ পর্যন্ত এরকম ঘটনা অনবরত ঘটবে, তা নিঃসংকোচে বলা যায়।


Search News




©2020 Daily matrichaya. All rights reserved.
Design BY PopularHostBD